April 23, 2018

কুকুর ভেবে ভালুক নিয়ে ঘরে! অত:পর…

image-27268-1521462627আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ঘুরে বেড়াচ্ছিল কালো রঙের একটি নিঃসঙ্গ-অসহায় কুকুর ছানা। তাকে দেখে চোখে পানি এসে যায় এক ব্যক্তির। কোলে তুলে বাড়ি নিয়ে আসেন তাকে। খেতে দেন দুধ, সসেজ ও ভুট্টা।

কিন্তু কুকুর ছানাটি একটু বড় হয়ে উঠতেই নানা অস্বাভাবিকতা দেখা দিতে থাকে। তার ডাক অন্য কুকুরদের মতো না। তাছাড়া বেশ সাবলীল ভাবেই কুকুরটি পেছনের দুই পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়াতে পারে!

পরে ওই কুকুর মালিকের ভুল ভাঙে। কারণ কুকুর ছানা মনে করে একটি ভালুক ছানা তুলে এনেছিলেন তিনি। এমন ঘটনা ঘটেছে দক্ষিণ-পশ্চিম চীনের ইয়ুনান প্রদেশের এক পাহাড়ি অঞ্চলে।

মাত্র আট মাসে ভালুকটির দৈর্ঘ্য বাড়তে বাড়তে হয়ে যায় এক দশমিক সাত মিটার। ওজন দাঁড়ায় ৮০ কিলোগ্রাম। তাই নিরাপত্তার স্বার্থে তিনি ভালুকটিকে খাঁচার ভেতর শিকলের সঙ্গে বেঁধে রাখেন।

ইয়ুনান প্রদেশের বন বিভাগের কর্মীরা ভালুকটিকে আবিষ্কারের আগ পর্যন্ত তা খাঁচার ভেতরই ছিল। কালো ভালুকদের এভাবে খাঁচার মধ্যে আটকে রাখা বেআইনি। তাই ‘এনিমেল রেসকিউ’য়ের লোকজন এসে ভালুকটিকে প্রাণী সংরক্ষণ কেন্দ্রে নিয়ে যান।

ভালুকটির কিছু ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করে একটি চীনা ইউটিউব চ্যানেল। ধারণা করা হয়, ভিডিওটি ওই ভালুকের মালিকের ধারণ করা। ভিডিওটিতে দেখা যায়, কালো রঙের একটি ভালুক ছানা একটি কুকুরের সঙ্গে খেলছে।

ভিডিওতে ভালুক ছানাটিকে মোটেও কোনো কুকুরের মতো দেখাচ্ছে না, বলে মন্তব্য করেন অনেকেই। ভালুকটিকে ইচ্ছাকৃতভাবে ওই ব্যক্তি বাড়িতে আটকে রাখতে পারেন বলে সন্দেহ বন বিভাগের কর্মীদেরও।

সর্বশেষ সংবাদ