February 20, 2018

সকল অপরাধ রোধে প্রশাসনকে জিরো টলারেন্সে থাকতে হবে-এমপি আবু জাহির

Habiganj Law & Order Picআজিজুল ইসলাম সজীব : হবিগঞ্জ সদর-লাখাই আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি এডভোকেট মোঃ আবু জাহির বলেছেন, যে সমস্ত লোকজন মাদক সেবন ও বিক্রির সাথে জড়িত তারাই বিভিন্ন অপরাধের সাথে সম্পৃক্ত হয়। সেই ক্ষেত্রে মাদক নির্মুলে পুলিশকে আরো কঠোর ভূমিকা পালন করতে হবে। এছাড়াও হবিগঞ্জে সব ধরণের অপরাধ নির্মুলে প্রশাসনকে জিরো টলারেন্সে থেকে কাজ করতে হবে। গতকাল রবিবার সকাল ১০টায় জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় তিনি এসব কথা বলেন।
এমপি আবু জাহির আরো বলেন, অভিযোগ রয়েছে বিভিন্ন স্থানে রাতের বেলা মাদকসেবীরা সরকারি স্থাপনাগুলোকে তাদের নিরাপদ নিরাপদ আশ্রয় হিসাবে বেছে নেয়। রাতের বেলা যাতে কোনো অপরাধী সরকারি স্থাপনাগুলো ব্যবহার করতে না পারে সে ব্যাপারে নৈশ প্রহরীদেরকে সতর্ক করে দেওয়ার পাশাপাশি প্রতিষ্ঠানগুলোকে গোপন ক্যামেরার আওতায় আনার পরামর্শ দেন তিনি। তিনি আরো বলেন, জনগণের জান-মালের নিরাপত্ত্বা নিশ্চিত করার জন্যই সরকার আইন-শৃঙ্খলা কমিটি’র ব্যবস্থা করে দিয়েছে। সুতরাং আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভার সিদ্ধান্তগুলো যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে হবে। এছাড়াও গ্রাম্য দাঙ্গাসহ প্রত্যন্ত এলাকার অপরাধ দমনে প্রতিটি ইউনিয়ন পর্যায়ে আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা আহবান করা অত্যন্ত জরুরী।
সম্প্রতি বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়ার রায়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, আদালত স্বাভাবিক নিয়মেই বিএনপি নেতাদের মামলার রায় প্রদান করেছে। এই বিষয়টিকে সামনে রেখে বিএনপি-জামায়াত অরাজক পরিস্থিতির সৃষ্টি করতে চাইছে। এ পর্যন্ত প্রশাসনের পাশাপাশি জনগণকে সাথে নিয়ে সরকারি দলের নেতাকর্মীরা সুন্দরভাবে এই পরিস্থিতিকে মোকাবেলা করেছে। ভবিষ্যতে যাতে তারা এই বিষয়টি ঘিরে কোনো সন্ত্রাস-নৈরাজ্য সৃষ্টি করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসনকে আরো সতর্ক থাকার আহবান জানান এমপি আবু জাহির।
এছাড়াও জেলার বিভিন্ন স্থানে যানজট নিরসনকল্পে পয়েন্টগুলোতে ট্রাফিক নজরদারী বাড়ানোর পাশাপাশি কাউন্টারগুলো যাতে রাস্তার অবস্থান নিতে পারে সে ব্যাপারে ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায়। প্রয়োজনে মোবাইল কোর্ট পরিচালনারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
জেলা প্রশাসক মনীষ চাকমার সভাপতিত্বে জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট তারেক মোঃ জাকারিয়া, জেলা পরিষদ প্রশাসক ডাঃ মুশফিক হুসেন চৌধুরী, বৃন্দাবন সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ এলিয়াছ হোসেন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসম সামছুর রহমান ভুইয়া, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান শহীদ উদ্দিন চৌধুরী, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হায়তুন নবী, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমদুল হক, নবীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট মোঃ আলমগীর চৌধুরী, বাহুবল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল হাই, চুনারুঘাট উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আবু তাহের, আজমিরীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতর আলী মিয়া, নবীগঞ্জ পৌর মেয়র ছাবির আহমেদ চৌধুরী, সহকারী পুলিশ সুপার রাজু আহমেদ, শৈলেন চাকমা, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এটিএম আজহারুল ইসলাম, মাধবপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, বানিয়াচং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সন্দ্বীপ কুমার সিংহ, লাখাই উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, হবিগঞ্জ জজকোর্টের পিপি এডভোকেট সিরাজুল ইসলাম, প্রেসক্লাব সভাপতি মোহাম্মদ শাবান মিয়া ও মহিলা আওয়ামী লীগের সভানেত্রী জমিলা খাতুনসহ সকল সদস্যবৃন্দ।

সর্বশেষ সংবাদ