January 20, 2018

মেজ ভাইয়ের শুভ জন্মদিন ও কিছু কথা…..

2

মো: জীবন রহমান : মানুষটি আমার মেজ ভাই, বন্ধু, বাবার মত। আমার আইডল…। সে প্রসঙ্গে আজকের লেখা। কেনো জানিনা, অন্য ভাইবোনদের চেয়ে মেজ ভাইয়ের সাথে আমার ব্যক্তিগত টিউনিংটা অনেক ভালো। তাঁর চলন, বলন সব কিছুই আমাকে আর্কষন করে। আমার জীবনে যা কিছু ভালো তার সব কিছুর পিছনেই মেজ ভাইয়ের অবদান রয়েছে। এ মানুষটি আমার মেজ ভাই, বন্ধু আর বাবার মত। আমার আইডল। কোনোদিন আমাকে কোনো কাজ করতে বাধা দেননি। শুধু কাজটির ভালো মন্দ দিক নিয়ে বুঝিয়েছেন। ভাইয়ের কাছে আমার দায়ের শেষ নেই। আমার জীবনের সবচেয়ে খারাপ সময় এগিয়ে এসেছেন তিনি। অর্থ, বুদ্ধি আর পরামর্শ দিয়েছেন। আমাকে কোনোদিন কষ্ট সইবার সুযোগ দেননি। পারিবারিক সকল বাস্তবতার বিপরীতে চলা এক উদার দৃঢ়চেতা চিত্তের প্রয়াস যেখানে সর্বদা শিরনত চিত্তে থাকে শ্রদ্ধা। কথায় আছে, যিনি সকলকে সুখি করতে গেলে নিজে অসুখি থাকতে হয়, এমনি এক পৃথিবীর নির্মম বাস্তবতা আর অসহায়ত্বের এক কাল ঝড় এসে একমাত্র বুকের মানিক আপন শিশুপুত্র হারা বেদনাহত হৃদয়ে বেচে থাকার অভিনয়ে লিপ্ত…। সবাইকে খুশি করার যেমনটি চেষ্টা পরিবারের ক্ষেত্রে তেমন সামাজিক দায়িত্বের ক্ষেত্রেও তার পার্থক্য নেই। একজন বাবা যেমন এক বটবৃক্ষের দায়িত্ব পালন করেন ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তায় আগলে রাখেন তার সন্তানদের-তেমনটি আমার মেজ ভাই আমার কাছে আমার বটবৃক্ষ ও ইস্পাত কঠিন দৃঢ়তায় সকল বাস্তবতার বিপরীতে গিয়ে আপনবুকে আগলে রেখেছেন। ভাইয়ের অনুপ্রেরণা না থাকলে চার পাচটা ডিক্রি অর্জন হতো না আমার। স্বার্থহীন স্নেহময় আবেগপরায়ণ আমার ভাই….. নির্ভরতা, ভালোবাসা, স্নেহ, মমতা, শাসন, ভয়, আশা, প্রত্যাশা সব কিছুতেই যেন পরিপূর্ণ, হা, সে কথাই বলছি, একজন স্বার্থহীন স্নেহময় আবেগপরায়ণ আমার মেজ ভাই মো: ফয়ছল মিয়া, হা, তিনি উজ্জ্বল হলেও, শত কষ্ঠ, স্নেহ মমতা আর ভালোবাসা দিয়ে আমাকে আলোকিত করার প্রাণবন্ত চেষ্টা করছেন আজ অবধি, এ যেন ঠিক “যে প্রদীপ আলো দেয়, সে নিজে আধারেই থাকে” এমনটা ছোটবেলা থেকে ই ভালোবেসেছেন আমাকে ও পরিবারকে একটা নির্ভরতার জায়গা, ভালোবাসা পাবার একটি সু-নিশ্চিত প্লাটফর্ম, ছোটবেলা থেকে ই অনেক কষ্ঠ করছেন আমাদের জন্য, কোনোদিন কোনো কিছুতেই অভাব বুঝতে দেননি, স্বার্থহীনভাবে সকলকে ভালো রাখার জন্য চেষ্টা করছেন। পৃথিবীর সকল মানুষ ই চাই, আমার ছেলেটা ভালো কিছু করুক, মেয়েটা ভালো কিছু করুক ভাইটা ভালো কিছু করুক, কিন্তু খুব মানুষ ই পাওয়া যাবে যে তাদের ভালো কিছু করার জন্য যা কিছু করা দরকার, নিজেকে বিলিয়ে দিয়ে তাদের ভালো কিছু করার জন্য চেষ্টা করা. হা, তিনি এটা করেছেন স্বার্থহীন ভাইয়ের মতো আমার পাশে ছিলেন ও আছেন জীবনে কেনোদিন না শব্দটা শুনতে হয়নি, আমার জন্য উনার কাছ থেকে কোনোদিন না শব্দটা ছিলো না, নানান ভাবে কষ্ট করেছেন আমাদের জন্য আমি বলতে পারি, আমার কাছে আমার ভাই, পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ ভাই,সকল পরিবারে যেন এমন একজন ব্যক্তি থাকে নিজের ইচ্ছা,নিজের ভালোলাগাকে মূল্যায়ন না করে সব সময় আমাদের নিয়ে ভাবেন। আমার ভাইয়ের অবদান বলে শেষ করা যাবে না, দীর্ঘ ১৩ বছর ঢাকায় ওনার তত্ত্বাবধানে সকল খরচাদি বহন করে চলেছেন, একবার এর জন্য ও সামান্য বিরক্ত হননি, ভাই আমার কাছে শুধু ভাই ই না, এ যেন একটি শীতল ছায়ার বটবৃক্ষ, দিন শেষে তার ছায়ায় আশ্রয় নেওয়া, এরকম অনেক উদাহরণ আছে আমার স্বার্থহীন ভাই’র মহান আল্লাহ্ কাছে প্রার্থনা ভাইকে দীর্ঘ হায়াৎ দান করেন এবং ভালোবাসা, সম্মান, সুস্ততা ও সততার সাথে বাচার তৌফিক দান করেন, আমিন।

আমার মেজ ভাই’র সংক্ষিপ্ত পরিচয়-মো: ফয়ছল মিয়া ডিজিএম-কম্প্রেহেসিভ হোল্ডিং প্রা. লিমিটেড

এ্যাডভোকেট-ঢাকা জজ কোর্ট, ঢাকা প্রধান সম্পাদক-সাপ্তাহিক আমার কুলাউড়া

লেখক-মো: জীবন রহমান-মো: ফয়ছল মিয়ার ৪র্থ ভাই

সর্বশেষ সংবাদ