November 23, 2017

নানা কৌশলে নারীদের ব্ল্যাকমেইল : সজীবের টার্গেট নারী (অডিওসহ

444-1স্টাফ রিপোর্টার : নানা কৌশলে ব্যবসার আড়ালে নারীদের ফাঁদে ফেলে সাইফুল ইসলাম সজীবের কাজ। বেশ কয়েকটি অডিও রয়েছে যার মধ্যে এই অডিওটি এমন ধারাবাহিকথার একটি। মৌলভীবাজার শহরের জেপিএল ডোর এন্ড ফার্ণিচার নামক দোকানের অন্তরালে তার এমন অর্পকম চলে আসছে। দীর্ঘদিন থেকে ছদ্ম বেশে কু-কর্মচালালেও এ পর্যন্ত রয়েছে সে ধরা ছোঁয়ার বাইরে। ডাঃ রাজিয়া সুলতানার অশ্লীল ভিডিও ধারণ শেষে ব্ল্যাকমেইল করে ৪০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়ার পর থেকেই প্রতারক সজিব আরো বেপরওয়া উঠে। এ সময় ডাক্তারকে ফাঁদে ফেলে ধারণ করা অশ্লীল ভিডিও তার অধ্যায়নরত তার মেয়ের কাছেও পাঠায়। এর পর থেকে একের পর এক তার অপকর্ম বৃদ্ধি পায়। ব্ল্যাকমেইল স্বীকার হয় সুপ্রীম কোর্টের আইনজীবী উম্মে শাহিদা মাহফুজা, তমালিকা, মমতা, সেফা, প্রিয়া, মিলি সহ আরো অনেক নারী। এদের অধিকাংশরা মানসম্মান আর লোক লজ্বার ভয়ে মুখ খুলতে নারাজ থাকায় দিনে তার অপকর্ম বৃদ্ধি পায়। সজিবের কাছে অনেক ব্ল্যাকমেইলের শিকার মহিলারা নাম প্রকাশ না করার শর্তে ওই লম্পট প্রতারকের দৃষ্ঠান্ত মূলক শাস্তির জন্য পুলিশ ও সাংবাদিকের কাছে তাদের সাথে এমন প্রতারণার ফিরিস্তি তুলে ধরেন। পুলিশ ও সাংবাদিকের তদন্তেও একে একে বেরিয়ে আসে তার নানা অপকর্ম আর ভংকর যতসব প্রতারণা।
উপরের অডিওটি এরকম ডায়না নামের এক মহিলা ক্রেতাকে ফোনে টোপ গিলাতে চায় সজিব। টুনকু কারনে ফোন দিয়ে তার সাথে আপন হওয়ার চেষ্ঠা চালায় সজিব। ওই মহিলা তাকে চিনতে না পারলেও সে তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের পরিচয় দিয়ে তার খোঁজ খবর নেয়। এক পর্যায়ে সে বলে সিলেটে তার একটি ডুপ্লেক্র বাংলো রয়েছে এর সাথে রাবার বাগানও আছে। বাংলোটি মনোরম করার জন্য ফুল বাগান করা হয়েছে। তখন ওই মহিলা ওই বাংলোটি ভাড়া দেওয়ার পরামর্শ দিলে সে জানায় এটিকে সে বৃদ্ধাশ্রম করতে চায়। তার ৩ ভাই ডাক্তার। তারা নাকি ওই বৃদ্ধাশ্রমে থাকা মানুষের সেবায় পর্যায়ক্রমে সময় দিবে। ওই বাংলো দেখতে আসার জন্য ওই মহিলাকে সে অফার করে। অডিওতে সে ওই মহিলাকে বলে যে তার দেশের বাহিরে যাওয়ার ইচ্ছা আছে কি না? প্রতিউত্তরে ওই মহিলা জানান তার বোন ও বোনের ছেলে মেয়েরা লন্ডনে থাকেন তিনি ওখানে যাবেন এবং থাকবেন। তখন সে জানান তার বড় ভাই লন্ডনে বড় বাসা নিয়ে পরিবারসহ থাকেন সে লন্ডনে গেলে ওখানে থাকে। অথচ সজিবের কোন ভাই ডাক্তারও না এমনকি কেউ লন্ডনেও থাকেন না বলে তার সৎ ভাইরা জানান। কমলগঞ্জের আদমপুরের পল্লী গ্রামে তার বাড়ি। তার বাবার একাধীক বিয়ে রয়েছে। আর তার সৎ ভাইরা অর্থকষ্ঠে খেয়ে না খেয়ে দিন যাপন করছেন। তারপরও ওদেরকে সে নানা ভাবে হয়রানি করে এমন অভিযোগও তার পরিবারের সদস্যদের। প্রতারক সজিব এমন নানা অভিনব প্রতারণার মাধ্যমে যেখানে যেটা প্রয়োজন সেই প্রলোভন দিয়ে মহিলাদের ঘনিষ্ট হয়ে ব্ল্যাকমেইলিং করে। তার এমন নানা অপকর্ম আর থলের বিড়াল একে একে বেরিয়ে আসছে।

আরো আসছে………………….

সর্বশেষ সংবাদ