September 19, 2017

এইচএসসিতে কুলাউড়ায় পাশের হার ৬২.৮৫ শতাংশ

Untitled-1 copyবিশেষ প্রতিনিধি : ২০১৭ সালের এইচএসসি পরীক্ষার ফলাফলে কুলাউড়া উপজেলার বেশীরভাগ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ফল বিপর্যয় হয়েছে। বিশেষ করে সরকারীকরণ ঘোষনার প্রথম বছরই ফল বিপর্যয়ে হতাশ কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের অভিভাবকবৃন্দ। তবে ফলাফলের দিক দিয়ে এগিয়ে রয়েছে ভূকশিমইল কলেজ। আর শতভাগ পাশের কৃতিত্ব দেখিয়েছে উপজেলার গজভাগ কলেজ।
উপজেলার ১৩টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ২৪৭৭ জন পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ১৫৫৭ জন। কুলাউড়ায় শিক্ষার্থীদের পাশের হার ৬২.৮৫ শতাংশ। জিপিএ-৫ পেয়েছে মাত্র ৫ জন। বিগত ৫ বছরের মধ্যে এবারের ফলাফল সবচেয়ে খারাপ হয়েছে। কমেছে জিপিএ-৫ ।
আলী আমজদ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে ২ জন শিক্ষার্থী জিপিএ-৫ পেয়েছে, একটি করে জিপিএ-৫ পেয়েছে ভাটেরা স্কুল এন্ড কলেজ, ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজ ও ইয়াকুব তাজুল মহিলা ডিগ্রি কলেজ।
জানা যায়, তিনটি কেন্দ্রে বিভক্ত এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রের মধ্যে কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের অধীনে ৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ৯৭১ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৫৭১ জন। পাশের হার ৫৮.৮০ শতাংশ। এ কেন্দ্র থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে ভাটেরা স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৫৮.৭২ শতাংশ। মোট ১৭২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ১০১ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। ছকাপন স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৮০.৮৫ শতাংশ। মোট ৯৪ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৭৬ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। ভুকশিমইল স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৮৯.৬২ শতাংশ। মোট ১০৬ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৯৫ জন। কুলাউড়া ডিগ্রি কলেজের পাশের হার ৪৯.৯২ শতাংশ। মোট ৫৯৯ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ২৯৯ জন।

ইয়াকুব তাজুল মহিলা ডিগ্রি কলেজের অধিনে ৩ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ৬৫৭ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৪০০ জন। পাশের হার ৬০.৮৮ শতাংশ। এ কেন্দ্র থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে বরমচাল স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৫২.২১ শতাংশ। মোট ১১৩ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৫৯ জন।
ইউসুফ গণী আদর্শ কলেজের পাশের হার ৫৩.৬০ শতাংশ। মোট ১২৩ জনের মধ্যে পাশ করেছে ৬৬ জন। ইয়াকুব তাজুল মহিলা ডিগ্রি কলেজের পাশের হার ৬৫.৩২ শতাংশ। মোট ৪২১ জনের মধ্যে পাশ করেছে ২৭৫ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ১ জন।
লংলা আধুনিক ডিগ্রি কলেজের অধিনে ৬ টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান থেকে মোট ৮৪৯ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে পাশ করেছে ৫৮৬ জন। পাশের হার ৬৯.০২ শতাংশ। এ কেন্দ্র থেকে জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে আলী আমজদ স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৮৬.৫৯ শতাংশ। মোট ৮২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৭১ জন। জিপিএ-৫ পেয়েছে ২ জন।
রাউৎগাঁও স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৬৭.৩১ শতাংশ। মোট ৫২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৩৫ জন। মনু মডেল কলেজের পাশের হার ৭০.৮৩ শতাংশ। মোট ৪৮ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৩৪ জন। নয়াবাজার কেসি স্কুল এন্ড কলেজের পাশের হার ৮১.৬৯ শতাংশ। মোট ১৪২ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ১১৬ জন।
গজভাগ স্কুল এন্ড কলেজের শতভাগ শিক্ষার্থী পাশ করেছে। মোট ৮ জন শিক্ষার্থী পরীক্ষা দিয়ে সবাই পাশ করেছে। লংলা আধুনিক ডিগ্রি কলেজের পাশের হার ৬২.২৮ শতাংশ। মোট ৫১৭ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে পাশ করেছে ৩২২ জন।

সর্বশেষ সংবাদ