September 19, 2017

ইবিতে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠার নীতিমালা পাশ

image-5495-1500560259ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে চেয়ার প্রতিষ্ঠার নীতিমালা পাশ করেছে কর্তৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩৫ তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। একই সাথে এ সিন্ডিকেটে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। সিন্ডিকেট শেষে এক প্রেস ব্রিফিং এর মাধ্যমে উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারী এ তথ্য জানান।

জানা যায়, বেলা সাড়ে ১১টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. হারুন উর রশিদ আসকারীর বাসভবনে এ সিন্ডিকেট সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপাচার্যের সভাপতিত্বে সিন্ডিকেট সভায় ১৭ জন সদস্যের মধ্যে ১৪ জন উপস্থিত ছিলেন। সভায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নামে চেয়ার প্রতিষ্ঠার নীতিমালা পাশ করা হয়। একই সাথে বঙ্গবন্ধু চেয়ারের প্রফেসর নির্বাচনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধীনে এ চেয়ার প্রতিষ্ঠা করা হবে।

এছাড়া তিনটি হলের নাম সংযোজন করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান থেকে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বেগম ফজিলাতুন্নেছা থেকে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেছা এবং শেখ হাসিনা থেকে দেশরত্ন শেখ হাসিনা নামকরণ করা হয়েছে।

একই সাথে ২৩৫ তম সিন্ডিকেটে কয়েকজন শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারিকে বিভিন্ন অপরাধে শাস্তি দেওয়া হয়েছে। ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষে ভর্তি পরীক্ষায় এফ ইউনিটের প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক নূরুল ইসলামকে পদাবনতি করে প্রভাষক করা হয়েছে। একই সাথে আগামী ৫ বছর কোনো ধরণের পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে পারবে না এবং ৫ বছর কোনো ইনক্রিমেন্ট ও পদোন্নতি পাবে না।

একই ঘটনায় অর্থ ও হিসাব শাখার সহায়ক কর্মচারি সাইফুল ইসলাম ও কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগারের কর্মচারী আলাউদ্দিন আলালকে আগামী দুই বছর কোনো প্রমোশন এবং পাঁচ বছর কোনো ইনক্রিমেন্ট দেওয়া হবে না। এছাড়া টেলিফোন শাখার উপ প্রধান প্রকৌশলী তৈমুর রেজা তুহিনকে অর্থ আত্মসাৎ এর ঘটনায় উপ প্রধান প্রকৌশলী থেকে পদাবনতি করে শাখা কর্মকর্তা করা হয়েছে। একই সাথে তাকে কোনো পদোন্নতি দেওয়া হবে না।

এছাড়া বিভিন্ন তদন্ত প্রতিবেদনের আলোকে কয়েকজনকে শোকজ নোটিশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ কার্যদিবসের মধ্যে লিখিত ভাবে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

প্রেস ব্রিফিং এ উপস্থিত ছিলেন- কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. সেলিম তোহা, প্রক্টর অধ্যাপক ড. মাহবুবর রহমানসহ বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মরত সাংবাদিকরা।

এসএম

সর্বশেষ সংবাদ